স্ত্রীয়ের নামে একটি বাড়ি ক্রয়ের উপকারিতা


ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্য নারী সম্পত্তি ক্রেতাদের, তাদের ক্ষমতায়ন বাড়ানোর জন্য সুবিধার প্রস্তাব দিচ্ছে, আমরা এটি পরীক্ষা করে দেখছি যে, কেন একটি মহিলার নামে সম্পত্তির নিবন্ধন/রেজিস্টার করলে সেটি একটি আর্থিক মান্যতা তৈরি করে।

একক মালিক হিসাবে অথবা যৌথ মালিক হিসাবে, একজন মহিলার নামে একটি সম্পত্তি ক্রয় করার অনেক সুবিধা আছে, সেখানে সরকার এবং ব্যাংকগুলি কিছু সিক্ততা/সুবিধা প্রদান করে।

অশোক মোহনানি, একতা ওয়ার্ল্ডের সিএমডি উল্লেখ করেন, যদি একটি বাড়ি একজন মহিলার নামে ক্রয় করা হয়, তবে উচ্চাভিলাষী গৃহ ক্রেতারা কর ছাড় সহ কিছু নির্দিষ্ট সুবিধা চাইতে পারেন। এই ধরনের প্রস্তাবগুলি আরো বেশী মহিলা ক্রেতাদের  রিয়েল এস্টেট বা আবাসন বিভাগের দিকে আকর্ষণ করতে পারে”। তিনি আরো যোগ করেন, নারীদের তাদের নামে সম্পদ নিবন্ধন/রেজিস্টার করতে উৎসাহিত করা, নারী ক্ষমতায়নকে বাড়াতে সাহায্য করে।  

 

ট্যাক্স বা কর সুবিধা

বিশেষজ্ঞরা ব্যাখ্যা করেন যে, যদি বাড়িটি স্ব-অধিকৃত হয়, তবে স্ত্রীয়ের নামে একটি বাড়ি কেনার সুস্পষ্ট কর সুবিধাগুলির সাথে, প্রতি আর্থিক বছরে 1.5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত একটি অতিরিক্ত ছাড় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। যদি স্বামী এবং স্ত্রী একটি সম্পত্তির যৌথভাবে মালিক হন এবং যদি স্ত্রী এর একটি পৃথক আয়ের পথ থেকে থাকে, তাহলে তারা উভয়েই স্বতন্ত্রভাবে ট্যাক্স বা কর ছাড়গুলি দাবী করতে পারেন। ট্যাক্স সুবিধাগুলি প্রত্যেক সহ-মালিকের মালিকানা ভাগের উপর নির্ভর করবে।

 

স্ট্যাম্প ডিউটির মূল্যের উপর ছাড়

উত্তর ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্য সরকার এখন স্ট্যাম্প ডিউটিতে আংশিক মুকুবের  প্রস্তাব দিচ্ছে, সেইসব ক্রেতাদের জন্য যারা একজন মহিলার নামে, হয় একজন একক মালিক হিসাবে বা একজন যৌথ মালিক হিসাবে, সম্পত্তির নিবন্ধন করাচ্ছেন।

সুশীল রাহেজা, রাহেজা হোমস বিল্ডারস অ্যান্ড ডেভেলপার এর সিইও বলেছেন, “যদি, সম্পত্তিটি কোন মহিলার নামে হয়, তাহলে আপনি 1% থেকে 2%  স্ট্যাম্প ডিউটির উপর বাঁচাতে পারবেন। দিল্লিতে, মহিলাদের জন্য স্ট্যাম্প ডিউটির হার 4% তুলনামুলকভাবে পুরুষদের জন্য 6%। তাছাড়া, যদি আপনি কিছু আর্থিক ঘাটতির সম্মুখীন হন এবং আপনার পরিশোধের জন্য কিছু ঋণ থাকে, তাহলে আপনার স্ত্রীর নামে রাখা সম্পত্তি আপনার ক্ষতির অধীনে পড়বে না”।

নারী বনাম পুরুষের জন্য স্ট্যাম্প ডিউটির মুল্য

রাজ্য/ইউটিনারীদের জন্যপুরুষদের জন্য
দিল্লি4%6%
হরিয়ানা4% গ্রামীণ এলাকায় এবং 6% শহুরে এলাকায়6% গ্রামীণ এলাকায় এবং 8% শহুরে এলাকায়
রাজস্থান4%*5%

* স্বাভাবিক হারের উপরে 1% ছাড়

 

গৃহ ঋণের সুদের হারে ছাড়

এসবিআই, আইসিআইসিআই এবং এইচডিএফসি ব্যাঙ্কের মত অনেক ব্যাংক, মহিলা ঋণগ্রহীতাদের জন্য গৃহ ঋণের ছাড়ের হারের প্রস্তাব দিয়েছে। মহিলা ঋণগ্রহীতাদের জন্য বিদ্যমান সুদের হার নীচে উল্লিখিত হলঃ

গৃহ ঋণের সূদের হার (ভাসমান)- মহিলা ঋণগ্রহীতা বনাম অন্যরা

ব্যাংকমহিলা ঋণগ্রহীতাদের জন্য সুদের হার (শতাংশ, প্রতি বছর)অন্যান্য ঋণগ্রহীতাদের জন্য সুদের হার (শতাংশ, প্রতি বছর)
এসবিআই8.45-8.958.5-9
আইসিআইসিআই ব্যাংক8.55-98.6-9.05
এইচডিএফসি লিমিটেড8.5-9.158.55-9.2

বিঃদ্রঃ 20 জুন,2018 অনুযায়ী হার (ঋণের পরিমাণের জন্য <এক কোটি টাকা)

 

স্ত্রীর নামে বাড়ি কেনার আগে মনে রাখার মতো কিছু জিনিস

 

বিশেষজ্ঞরা বলেন যে, একজনের স্ত্রী নামে বা সহ-মালিকানাধীনে একটি বাড়ি কেনা হল একটি ভাল ধারণা।যদিও স্ত্রী তখনই কর সুবিধাগুলি উপভোগ করতে পারবেন, শুধুমাত্র যদি তার আয়ের একটি পৃথক এবং প্রকৃত উপায় থাকে। এছাড়াও সম্পত্তিটির কোনও আইনগত বিরোধ থাকলে, স্বামী ও স্ত্রী উভয়েই এক্ষেত্রে জড়িত হবে। অতএব, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে, গৃহ ক্রেতাদের সমস্ত সম্ভাবনার মূল্যায়ন করা উচিত।

 

Was this article useful?
  • 😃 (0)
  • 😐 (0)
  • 😔 (0)

Comments

comments